1. mahadihasaninc@gmail.com : admin :
  2. hossenmuktar26@gmail.com : Muktar hammed : Muktar hammed
জয়পুরহাটে স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ৪ জনের যাবজ্জীবন - dailybanglarpotro
  • June 15, 2024, 3:06 pm

শিরোনামঃ
রাজশাহী নগরীতে ৪ নারীসহ ৮ ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার রাজশাহী সিটি প্রেসক্লাবের নয়া কমিটির দায়িত্ব গ্রহন মহানগর ছাত্রলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়ার উদ্যোগে বিশ্ব পরিবেশ দিবসে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালিত প্রকৃতি ও পরিবেশ সুরক্ষায় ‘গ্রিন কোয়ালিশন’ গঠন দুর্গাপুরে আলিপুর মক্কা আল-মদিনা ডায়াগনস্টিক সেন্টার উদ্বোধন চারঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব ফখরুল ইসলাম আনারস প্রতীকে বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে  পঞ্চগড়ে বঞ্চিত শিশুদের আনন্দ দিতে শিশুস্বর্গের নানা আয়োজন গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর অন্তরঙ্গ ভিডিও ভাইরাল যমুনা লাইফের সাফল্যের কারিগর কামরুল হাসান খন্দকারের নেতৃত্বের ৫ বছর দুর্গাপুর উপজেলার দুটি কেন্দ্রে সংঘর্ষ; গুরুত্বর আহত ১২

জয়পুরহাটে স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ৪ জনের যাবজ্জীবন

  • Update Time : Monday, June 26, 2023
  • 323 Time View
জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ ২৬-জুন,জয়পুরহাটে স্বামীকে হত্যা দায়ে স্ত্রীসহ ৪জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তাদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে এক বছরের কারাদ- দেওয়া হয়। সোমবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক নুর ইসলাম এ রায় দেন।
দণ্ড -প্রাপ্তরা হলেন, পাঁচবিবি উপজেলার কুটাহারা গ্রামের আবুল হোসেনের স্ত্রী ডলি বেগম, মৃত নিগমা উড়াওয়ের ছেলে সুরেন উড়াও, ধলু মন্ডলের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান ও দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের ফিরাজ উদ্দীনের ছেলে কাফা। এর মধ্যে ডলি বেগম পলাতক রয়েছেন।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার মটপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ফয়েজের ছেলে আবুল হোসেনের সাথে কুটাহারা গ্রামের আব্দুর রহমানের মেয়ে ডলির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে আবুল হোসেন তার শশুরবাড়ীতে ঘর জামাই থাকতেন। সেসময় পারিবারিক নানা বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ চলে আসছিল। অন্যদিকে ডলি মামলার তিন আসামীর সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এই অবৈধ সম্পর্ক দেখে পরিকল্পনা মোতাবেক ২০০১ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর রাতে আসামীরা শ্বাসরোধে আবুলকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরের দিন তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ঘটনায় ২৯ সেপ্টেম্বর নিহতের পিতা ফয়েজ উদ্দিন বাদী হয়ে পাঁচবিবি থানায় মামলা করেন।
আবুল হোসেনকে হত্যাকান্ডের বিষয়টি প্রতিভাত হয়ে স্ত্রী ডলি বেগমের সাথে আসামী কাফা, মোস্তাফিজুর ও সুরেন উড়াও এর সাথে অবৈধ সম্পর্ক ছিল। মাঝে মধ্যে উক্ত তিন জন আসামী কর্তৃক স্ত্রী ডলি বেগমের সাথে খারাপ কাজে মিলিত হয়।
এ বিষয়ে ডলি বেগম আতালতে দোষ স্বীকারোক্তি মূলক জবাবন্দীতে হত্যাকান্ডে লোমহর্ষক ঘটনার কঁতা স্বীকার করে সাজাপ্রাপ্ত ৩ জনের বিরুদ্ধে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দেয়। জবানবন্দিতে ডলি বেগম বলেন, কাফা, মোস্তাফিজুর আবুল হোসেনের গলায় রশি লাগাইয়া টানাটানি করে হত্যাকান্ডের পর আসামী কাফা এবং মোস্তাফিজুর ডলি বেগমের সাথে অবৈধভাবে মেলামেশা করেন। পরবর্তীতে অনুশোচিত হইয়া আসামী ডলি বেগম নিজেকে জড়াইয়া স্বেচ্ছাপ্রনোদিতভাবে জবানবন্দী প্রদান করেছে। এরপর ডলি বেগম পরবর্তীতে গত ইং ১৭-১১-১৬ তাং হইতে অত্র পলাতক। এরপর মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে বিজ্ঞ আদালতের বিচারক স্ত্রী ডলি জহুরের অনুপস্থিতিতে আজ এ রায় দেন।
মামলার সরকারি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন এ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল পিপি। আর আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন আফজাল হোসেন ও আবু কায়সার।
মোঃ নেওয়াজ মোর্শেদ নোমান
জয়পুরহাট
০১৭১০৬২৯৫৬২

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category